”সুশান্তের টাকাপয়সা নিজের করতেই মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ দিতে শুরু করেন রিয়া”

|

সুশান্তের সম্পত্তি এবং টাকা পয়সা হড়প করাই মূল উদ্দেশ্য ছিল রিয়া চক্রবর্তীর। সেই কারণেই সুশান্তকে মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ দিতে শুরু করেন অভিনেত্রী। শীর্ষ আদালতকে এমনই জানাল বিহার পুলিস ।

বিহার পুলিসের তরফে শীর্ষ আদালতে অ্যাভিডেভিট দাখিল করা হয়। সেখানে বিহার পুলিসের তরফে দাবি করা হয়, সুশান্তের অর্থ হড়প করতেই তাঁকে দিনের পর দিন ধরে ওষুধ দিতেন রিয়া চক্রবর্তী। শুধু তাই নয়, তাঁর অর্থ হড়প করতেই সুশান্তকে মানসিক রোগী বলে প্রকাশ করেছিলেন রিয়া চক্রবর্তী ।

সুশান্তের অর্থ হড়প করতে পরিকল্পনামাফিকই তাঁক সংস্পর্শে আসেন রিয়া চক্রবর্তী এবং তাঁর পরিবারের সদস্যরা।

দিনের পর দিন ধরে সুশান্তকে মানসিক রোগী সাজিয়ে তাঁর সম্পত্তি হড়প করাই রিয়া চক্রবর্তীর লক্ষ ছিল বলে শীর্ষ আদালতে দাখিল করা অ্যাভিডেভিটে দাবি করে বিহার পুলিস ।

এদিকে রিয়া চক্রবর্তীকে সমন পাঠানো হয় ইডির তরফে। কিন্তু ইডির দফতরে হাজির হতে তাঁকে আরও বেশ কয়েকদিন সময় দেওয়া হোক বলে আবেদন করেন রিয়া ।

এ বিষয়ে বিহার পুলিসের ডিজিপি গুপ্তেশ্বর পান্ডে বলেন, ইডির দফতরে হাজির হলে গ্রেফতার করা হতে পারে রিয়া চক্রবর্তীকে। সেই ভয়েই তিনি এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের দফতরে হাজিরা দেবেন না ।








Leave a reply