অক্ষয়ের নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন

|

অক্ষয় কুমার কোথাকার নাগরিক? নতুন করে এই প্রশ্ন শিরোনামে উঠে এসেছিল। যা নিয়ে মন্তব্য পাল্টা মন্তব্যে সরগরম হয়েছিল নেটদুনিয়া।লোকসভা নির্বাচনের সময় নিজের নাগরিকত্ব নিয়ে এত জল্পনায় বেজায় চটেছিলেন অভিনেতা। বলেছিলেন, ‘আমার নাগরিকত্ব নিয়ে হঠাৎ অযথা এত উৎসাহ দেখানো হচ্ছে কেন বুঝতে পারছি না। ভারতের জন্য আমার ভালবাসার প্রমাণ এত বছরে কাউকে দিতে হয়নি। তাহলে এখন কেন? আমার নাগরিকত্ব নিয়ে অযথা টানাটানি করে বিতর্কের সৃষ্টি করা হচ্ছে! এটা একান্তই ব্যক্তিগত, অরাজনৈতিক এবং আইনত বিষয়। এতে অন্যের মাথা ঘামানোর কোনও প্রয়োজন দেখছি না।’ পরে একটি ভিডিওতে তিনি দাবি করেছিলেন, কানাডার টরন্টোই নাকি তার শহর। শুধু তাই নয়, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি থেকে অবসর নেওয়ার পর তিনি যে কানাডাতেই পাকাপাকিভাবে থাকবেন,সে কথাও জানান। এবার বিএমসিকে স্বাগত করতে গিয়ে নতুন করে সমালোচনায় বিদ্ধ হলেন অক্ষয় কুমার। সম্প্রতি একটি ঘটনায় ফের উসকে গেল বিষয়টি। যার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় আবার কটাক্ষের শিকার হতে হল বলিউডের খিলাড়ি অক্ষয় কুমারকে।

ভারতের একটি পত্রিকার খবরে বলা হয়, মুম্বাইয়ের পুরনিগম বা বিএমসি সম্প্রতি টুইটারে অ্যাকাউন্ট খুলেছে। প্রায় প্রতিবছরই অতিবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় মুম্বাই। ঘরছাড়া হন হাজার হাজার মানুষ। বিভিন্ন জায়গায় পানি জমে যাওয়ায় সমস্যায় পড়েন দেশটির বাণিজ্যনগরের বাসিন্দারা। সেই কারণেই বর্ষার প্রাক্কালে সোশ্যাল মিডিয়ায় পদার্পণ বিএমসির। টুইট করেই যাতে সাধারণ মানুষ নিজেদের সমস্যার কথা তুলে ধরতে পারেন, সেই জন্যই এই প্রয়াস।

অ্যাকাউন্ট খোলার পরই তাদের এই মাইক্রো ব্লগিং সাইটে স্বাগত জানান আক্কি। লেখেন, ‘BMC এখন টুইটারে। এবার আপনারাও টুইট করে পরামর্শ দিতে পারেন। সরাসরি তুলে ধরতে পারেন নিজেদের অভাব-অভিযোগ। বিএমসি-কে ফলো করে নিজের সমস্যায় নিজেই সুর চড়ান।’

আর এই টুইটের পরই নেটিজেনদের কটাক্ষের মুখে পড়েন বলিউডের সুপারস্টার। অনেকে বেশ অশ্লীল শব্দেই আক্রমণ করেছেন অক্ষয়কে। তাদের মতে, কানাডার পাসপোর্টধারী কোনও ব্যক্তিকে ভারত ও ভারতীয়দের নিয়ে বেশি মাথা ঘামানোর প্রয়োজন নেই অভিনেতার।

এক সিনেটিজেন আবার ‘জয় কানাডা’ লিখে অক্ষয়ের একটি ছবি পোস্ট করেছেন। সেখানে অভিনেতাকে দেখা যাচ্ছে কানাডার পতাকার ছবি দেওয়া পোশাক পরে। অনেকে আবার মশকরা করে বলেছেন, বাকি সবকিছুতেই ভারতের জয়গান করেন অক্ষয়। কিন্তু পাসপোর্টের ক্ষেত্রেই শুধু ভারতের নাগরিকত্ব ভাল লাগে না তার।








Leave a reply