চাহিদা বাড়ছে কলাপাতায় খাওয়া, উপকারিতা জানেন?

|

আগেকার দিনে যে কোনও অনুষ্ঠানবাড়িতেই কলাপাতায় খাওয়ার একটা চল ছিল। এখনকার দিনে সেই রেওয়াজ চোখে না পড়লেও বেশ কিছু বনেদি বাড়িতে পুজোর ভোগ নিবেদন করা হয় কলাপাতায়। তবে সেই ট্রেন্ড আবারও ফিরে আসতে চলেছে। মাটির থালা, মাটির গ্লাসের সঙ্গে সঙ্গে কলাপাতাও ফিরছে ঐতিহ্যের অঙ্গ হিসেবেই। মধ্যিখানে বেশ কয়েকবছর থার্মোকলের প্লেট, আর বাহারি প্লেটের চাপে হারিয়ে গেলেও ফের স্বমহিমায় কলাপাতা। কলাপাতাকে নানাভাবে কাটিং করেও এখন ব্যবহার করা হচ্ছে। থার্মোকলের প্লেট কিংবা মাটির থালার উপর দেওয়া হচ্ছে কলাপাতা। আর থার্মোকল একেবারেই পরিবেশ বান্ধব নয়। সেই দিক দিয়ে দেখতে গেলে কলাপাতা কোনও পরিবেশ দূষণ ঘটায় না।

এছাড়াও শরীরের জন্য খুবই ভালো কলাপাতা। গবেষকরা জানিয়েছেন, লাপাতায় রয়েছে এক ধরনের পলিফেলন জাতীয় উপাদান যা খাবার সময় আমাদের শরীরে প্রবেশ করে। এই পলিফেলন হল এক রকমের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এছাড়াও কলাপাতায় লিগনিন, হেমিসেলুলোস, প্রোটিন, অ্যালোয়েনটাইন নামের বেশ কিছু উপাদান রয়েছে। যা বয়সকালে পারকিনসন রোগের হাত থেকে রক্ষা করে। কলাপাতায় আছে ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধকারী বেশ কিছু উপাদান আর কলাপাতার উপর একটা মোমের মতো আস্তরণ থাকে। যা খাবারের স্বাদ বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ। এছাড়াও কলাপাতার রয়েছে বেশ কিছু উপকারিতা।

ফিরছে কলাপাতায় খাওয়া, উপকারিতা জানেনঃ কলাপাতায় থাকে অ্যালোয়েনটাইন ও পলিফেনল নামক দুটি উপাদান। যা পেটের যে কোনও সমস্যায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও যাঁদের ক্রনিক পেটের সমস্যা থাকে তাঁরাও যদি কলাপাতায় খেতে পারেন তাহলে খুবই ভালো। সেই সঙ্গে হজমও ভালো হয়।

কলাপাতা যেহেতু অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর তাই কলাপাতায় খেলে অনেক উপকার পাওয়া যায়। সেই সঙ্গে শরীরের অতিরিক্ত টক্সিন বেরিয়ে যায়। ত্বক হয় উজ্জ্বল। সেই সঙ্গে সতেজও লাগে। কেরলে এখনও রূপচর্চার উপকরণ হিসেবে কলাপাতা ব্যবহার করা হয়। যে কোনও ভাইরাস ঘটিত রোগের থেকে মুক্তি পাওয়া যায়, যদি কলাপাতায় খাওয়া হয়। কলাপাতায় থাকে এমন কিছু উপাদান যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে ভাইরাসের সঙ্গে লড়ে। যার ফলে রোগের প্রকোপ থেকে মুক্তি যেমন পাওয়া যায় তেমনই শরীরও সুস্থ থাকে।

যেভাবে কলাপাতার ব্যবহার করবেনঃ কলাপাতা খুব ভালো করে ধুয়ে তবেই ব্যবহার করবেন। বড় কলাপাতা হলে খুবই ভালো। তাহলে পুরো খাবার একসঙ্গে ধরে যাবে।কলাপাতা যেহেতু পরিবেশ বান্ধব তাই ব্যবহারের পর মাটিতে ফেলে দিলে তা মাটির সঙ্গেই মিলিয়ে যাবে।

কোনও ভাবা খাবার বানাতে অবশ্যই কলাপাতা ব্যবহার করুন। কারণ কলাপাতা দিয়ে যেমন ভালোভাবে মোড়া যায় তেমনই কলাপাতায় ভালো সেদ্ধও হয়। সেই সঙ্গে কলাপাতায় EGCG থাকায় হজমও ভালো হয়।এই সময় ডিজিটালের লাইফস্টাইল সংক্রান্ত সব আপডেট এখন টেলিগ্রামে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন এখানে।








Leave a reply