শুধু খেলেই হবে? মাখতেও তো হবে বেকিং সোডা!

|

আমরা প্রায় সকলেই জানি পকোড়া বানানোর সময় তার সঙ্গে বেকিং সোডা পাউডার মেশালে পকোড়া খেতে মুচমুচে হয়, আকারেও বেড়ে যায় তা। এছাড়া, রুটি নরম করতে আটা মাখার সময় বেকিং পাউডার মেশাতে পারেন। তবে কেবলমাত্র খাবার জন্যই নয়! আমাদের ত্বকের পক্ষেও যথেষ্ট উপকারী হল বেকিং পাউডার।

পায়ের ক্ষেত্রেঃ গরমকালে পায়ে একটু বেশি ঘাম হয়। জুতো খোলার পর পা থেকে ঘামের গন্ধ আসে। এমনকী, পা ঢাকা জুতো না পরে হাওয়াই চটি পরলেও পা থেকে গন্ধ ছাড়ে। তার জন্য এক বালতি হালকা গরম জলের মধ্যে দু চামচ বেকিং পাউডার দিয়ে ২০ মিনিট তাতে পা ডুবিয়ে রাখুন। এতে পায়ের নোংরাসহ ডেড সেলও পরিষ্কার হবে। পায়ে থাকা জীবাণুর জন্যই গন্ধ ছাড়তে থাকে। বেকিং পাউডার খারাপ জীবাণুও মেরে ফেলতে সক্ষম।

নখের জন্যঃ হাত ও পায়ের নখ যতই পরিষ্কার হোক না কেন নখের মধ্যে নোংরা থেকেই যায়। যা থেকে নখে ব্যথাও হতে পারে। সাবান দিয়ে পরিষ্কার করার পরেও নোংরা যেতেই চায় না। এমনকী, অনেকসময় নেল পলিশ পরার ফলেও নখ হলদে হয়ে যায়। তাই নখ পরিষ্কার করতে বেকিং পাউডার ব্যবহার করতে পারেন। অল্প পরিমাণ জলের সঙ্গে বেকিং পাউডার মিশিয়ে নখের উপর কয়েক মিনিট ঘষতে থাকুন। দেখবেন, আস্তে আস্তে নখের হলদেভাব কেটে গিয়ে নখ পরিষ্কার হয়ে গেছে।

দাঁতের জন্যঃ দাঁত অনেকসময় হলুদ হয়ে যায়। ব্রাশ করার পরও হলুদভাব কিছুতেই কাটতে চায় না। ব্রাশ করার সময় ব্রাশের উপরে কিছু পরিমাণ বেকিং পাউডার লাগিয়ে ব্রাশ করুন। এরপর ভালোভাবে জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। তারপর যে মাজন দিয়ে আপনি ব্রাশ করেন, সেই মাজন দিয়ে ব্রাশ করে নিন। সপ্তাহে অন্তত দু-বার বেকিং পাউডার দিয়ে ব্রাশ করার ফলে চকচকে ঝকঝকে হয়ে উঠবে আপনার দাঁত।

বডি স্ক্রাবার হিসেবেঃ বাজার চলতি বডি স্ক্রাবার না কিনে ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন বডি স্ক্রাবার। সামান্য পরিমাণ ওটসের সঙ্গে জল আর বেকিং পাউডার মিশিয়ে, তা বডি স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। স্নানের আগে সারা গায়ে ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানানো ওই বডি স্ক্রাবার লাগিয়ে হালকা মাসাজ করুন। ওইভাবে কিছুক্ষণ রাখার পর ভালোভাবে ধুয়ে নিন। এর ফলে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল।








Leave a reply